পাকিস্তানের ৩ নদীর পানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত

সোমবার, ১১ মার্চ ২০১৯ | ৫:৩০ অপরাহ্ণ | 205 বার

পাকিস্তানের ৩ নদীর পানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত

ভারতের ওপর দিয়ে পাকিস্তানের দিকে প্রবাহিত পূর্বাঞ্চলীয় তিনটি নদী- সুতলেজ, রাভি ও বিয়াস এর পানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত। জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলার জেরে পাকিস্তানকে শিক্ষা দিতেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান ভারতের কেন্দ্রীয় পানিসম্পদমন্ত্রী। এরমধ্যেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে ভারত। জম্মু কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখার পুঞ্চ জেলার পার্শ্ববর্তী গ্রামসহ চারটি স্থানে যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে, পাকিস্তানি সেনারা গুলিবর্ষণ করে বলে দাবি ভারতের। তবে কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে কোনো ছাড় দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত মাসে জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলায় সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের ৪০ সদস্য নিহত হবার পর থেকেই জঙ্গি নির্মূলে অভিযান অব্যাহত রেখেছে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী। রবিবারও পুলওয়ামা জেলার পিংলিশে সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানে নামে তারা। এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বেশ কয়েকজন অস্ত্রধারী নিহত হয় বলে জানায় ভারতীয় প্রতিরক্ষা দপ্তর। এদের মধ্যে পুলওয়ামা হামলার সঙ্গে জড়িত জইশ-ই-মোহাম্মদের এক জঙ্গি রয়েছে বলেও ধারণা করছে তারা। পুলওয়ামা হামলার জেরে থেমে থেমেই ইসলামাবাদের সঙ্গে নয়াদিল্লির উত্তেজনার পারদ ওঠানামা করছে। যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে কাশ্মীরের পুঞ্চ জেলার নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে রবিবার পাকিস্তানি সেনারা ব্যাপক গুলিবর্ষণ করে বলে দাবি করে ভারত। ভারতের কৃষ্ণ ঘাঁটি সেক্টরসহ চারটি স্থানে মর্টার হামলা চালানো হয় বলেও জানান দেশটির প্রতিরক্ষা দপ্তরের মুখপাত্র। তবে গুলি বর্ষণের ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

এরমধ্যেই পুলওয়ামা হামলার প্রতিশোধ হিসেবে পাকিস্তানের দিকে প্রবাহিত পূর্বাঞ্চলীয় সুতলেজ, রাভি ও বিয়াস নদীর পানি বন্ধ করে দিয়েছে নয়াদিল্লি। রবিবার ভারতের কেন্দ্রীয় পানিসম্পদ মন্ত্রী অর্জুন মেঘওয়াল বলেন, পাকিস্তানের দিকে যাওয়া পাঁচ লাখ ত্রিশ হাজার অ্যাকর-ফুট পানি আটকে রেখেছেন তারা। প্রয়োজনের সময় রাজস্থান ও পাঞ্জাবের মানুষের জন্য এই পানি ব্যবহার করা হবে বলে জানান তিনি। এর মধ্য দিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে ১৯৬০ সালের সিন্ধু জল চুক্তির কোনো লঙ্ঘন হবে না বলেও দাবি করেন অর্জুন মেঘওয়াল। সিন্ধু নদের পানি বন্ধ করে দেয়ার ব্যাপারে ইসলামাবাদের পক্ষ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া না গেলেও পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি বলেছেন, কাশ্মীরের ব্যাপারে ভারতকে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

শাহ মেহমুদ কোরেশি বলেন, ‘কাশ্মীরে আমরা শান্তি দেখতে চাই। তবে এই অঞ্চলের ব্যাপারে আমরা কোনো ছাড় দেব না। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে অব্যাহত মানবাধিকার লঙ্ঘনের ব্যাপারে শুরু থেকেই হাউজ অফ কমন্সসহ জাতিসংঘ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নে আমরা আমাদের উদ্বেগ জানিয়ে আসছি।’ ভারতের নির্বাচন সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নির্বাচনী সুবিধা আদায়ে যে কোনো পথ অবলম্বন করতে পারেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এ বিষয়ে ওআইসিসহ আন্তর্জাতিক মহলকে অবহিত করা হয়েছে বলে জানান পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

Development by: visionbd24.com