পুলিশের হুমকির পরেও টলতে নারাজ ১২ বছরের সাংবাদিক!

রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৫:৩২ অপরাহ্ণ | 346 বার

পুলিশের হুমকির পরেও টলতে নারাজ ১২ বছরের সাংবাদিক!

হিলডে লিসিয়াক। যুক্তরাষ্ট্রের ছোট্ট শহর আরিজোনার এক খুদে সাংবাদিক। পুলিশের হুমকির মুখেও নিজের অবস্থান থেকে টলতে নারাজ সে। আর এমন ঘটনা সামনে আসতেই আলোচনায় চলে এসেছে ১২ বছর বয়সী ওই রিপোর্টার । এর আগে লিসিয়াক ২০১৬ সালে তার নিজের শহরে ভয়াবহ হত্যাকাণ্ডের রিপোর্ট করতে গিয়ে ও খবরের শিরোনাম হয়েছিলো। অবশ্য তখন তাকে সমালোচনার মুখেই পড়তে হয়েছিল। কারণ তখন তার বয়স ছিল মাত্র ৯ বছর।

এরপর বেশ কিছু ব্যাংক ডাকাতি, ধর্ষণের অভিযোগ এবং আরও বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর অপরাধের খবর সামনে নিয়ে আসে লিসিয়াক। পেনসিলভানিয়ার সেলিনসগ্রোভে তার বাবা-মায়ের বাড়ি থেকে প্রকাশিত পত্রিকা অরেঞ্জ নিউজ স্ট্রিটে এসব খবর তুলে ধরে সে।

গত সপ্তাহে এক মাদক ব্যবসায়ী এবং যৌনতায় বাধ্য করার নারীর মধ্যকার ট্রেক্সট ম্যাসেজ তুলে ধরে রিপোর্ট করেছিলো লিসিয়াক। এই ঘটনার পর আরিজোনার পাতাগোনিয়ায় শহরের জোসেফ প্যাটারসন নামের এক পুলিশ কর্তকর্তা জুভেনাইল জেলে পাঠানোর হুমকি দেন। এই হুমকি পরোয়া না করে অন্যায়কে তুলে ধরে সে।
অরেঞ্জ স্ট্রিট নিউজে লিসিয়াক লিখেছেন, সেদিন দুপুর দেড়টার দিকে সংবাদের জন্য তথ্য সংগ্রহ করছিলো। সেখানে এসে প্যাটারসন বলেন, শহরটিতে তিনি পুলিশ প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। লিসিয়াককে সে থামায় এবং পরিচয় জানতে চান। সে তাকে তার নাম, ফোন নম্বর দেয় এবং বলে সে গণমাধ্যমের সদস্য।

সে সময় প্যাটারসন তাকে বলেন, আমি গণমাধ্যমের স্বাধীনতার কোনো বাক্য শুনতে চাই না। তাকে গ্রেফতার করে জুভেনাইল কারাগারে পাঠিয়ে দেবেন। কিন্তু তারপরও লিসিয়াক প্যাটারসনের পেছনে পেছনে গিয়ে ভিডিও করতে থাকে। তার উদ্দেশে বলে, আপনি আমাকে জেলে পাঠাতে চেয়েছেন। আসলে আমি অবৈধ কী করেছি? ঘটনার পরের দিন ইন্টারনেটে এই ভিডিও আপলোড করে লিসিয়াক। এরপরই অনেকের কমেন্ট আসতে শুরু করে। অনেকেই তার সৎ সাহসীকতার প্রশংসা করেন। কেউ কেউ মনে করেন, লিসিয়াকের কাছে দুঃখ প্রকাশ করা উচিত।

Development by: visionbd24.com