শপথ নিলেন আতিকুল, ঢাকাকে পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ

বৃহস্পতিবার, ০৭ মার্চ ২০১৯ | ৩:০২ অপরাহ্ণ | 658 বার

শপথ নিলেন আতিকুল, ঢাকাকে পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ

ঐতিহ্যবাহী রাজধানীকে দৃষ্টিনন্দন ও সার্বক্ষণিক পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখারও নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার নিজ কার্যালয়ে ঢাকা উত্তর সিটির নতুন মেয়র এবং দুই সিটির নতুন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের শপথ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। শপথ অনুষ্ঠানে নতুন মেয়র ও কাউন্সিলরদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী।

শপথ নিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আতিকুল ইসলাম। সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে তাকে শপথবাক্য পাঠ করার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে উত্তরের মেয়রের পাশাপাশি শপথ নেন দুই সিটির নবনির্বাচিত কাউন্সিলররাও। স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম তাদের শপথ পড়ান। শপথ অনুযায়ী কর্তব্য পালন করতে এবং মানুষের কল্যাণে কাজ করতে নতুন মেয়র ও কাউন্সিলরদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় পুরান ঢাকায় রাসায়নিক গুদাম সম্পর্কে শেখ হাসিনা বলেন, যতই বাধা আসুক না কেন ওই এলাকা থেকে রাসায়নিক গুদাম সরানো হবে। রাসায়নিক কারখানার জন্য আলাদা জায়গা করে দেয়া হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচনে নয় লাখ ভোটের মধ্যে একাই আট লাখ পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। ভোটের এক সপ্তাহের মাথায় বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শপথ নেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শপথ বাক্য উচ্চারণ করেন আতিকুল। সততা, নিষ্ঠা ও বিশ্বস্ততার সঙ্গে নিজ পদের দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনের অঙ্গীকার করেন। একই অনুষ্ঠানে ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ সিটির নতুন ওয়ার্ডগুলো থেকে নির্বাচিত ৫০ জন কাউন্সিলরকে শপথ পড়ান স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। নতুন কাউন্সিলরের মধ্যে ঢাকা উত্তরের ২৬ ও দক্ষিণের ২৪ জন। তাদের মধ্যে সংরক্ষিত আসনের নারী কাউন্সিলর রয়েছেন ১২ জন।

জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে তাদের প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ায় নতুন মেয়র ও কাউন্সিলরদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে পুরান ঢাকার ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাসায়নিক গুদামের জন্য আলাদা জায়গা করে দেয়া হবে। কিন্তু আবাসিক এলাকায় রাসায়নিক কারখানা রাখা যাবে না।

আনিসুল হকের মৃত্যুতে ঢাকা উত্তরের মেয়র পদ শূন্য হয়। আদালতের স্থগিতাদেশ কাটিয়ে গত ২৮ ফ্রেব্রুয়ারি এই সিটিতে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী আতিকুল ইসলাম পান ৮ লাখ ৩৯ হাজার ৩০২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির শাফিন আহমেদ পান ৫২ হাজার ৪২৯ ভোট পান। ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তরে ভোট হওয়ার পর ১৪ মে প্রথম সভা হয়েছিল। সে হিসাবে এই উপনির্বাচনে নির্বাচিত মেয়র ২০২০ সালের ১৩ মে পর্যন্ত দায়িত্ব পালনের সুযোগ পাবেন।

Development by: visionbd24.com